ভারতে নিষিদ্ধ করা হলো ৫৯টি চীনা অ্যাপ!

২৯ জুন সোমবার ভারত সরকার দেশে ৫৯টি চীনা অ্যাপ্লিকেশন নিষিদ্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে। এর মধ্যে সর্বাধিক জনপ্রিয় অ্যাপ TikTok অ্যাপল স্টোর এবং গুগল প্লে স্টোর থেকে ব্লক করা হয়েছে। চীন এবং ইংল্যান্ডের পর ভারতে TikTok ব্যবহারকারীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

সরকার বলেছে যে এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি “ভারতের সার্বভৌমত্ব ও অখণ্ডতা, ভারতের প্রতিরক্ষা, রাষ্ট্রের সুরক্ষা এবং জনগণের শৃঙ্খলা রক্ষামূলক পূর্বপর্যায়ে কাজকর্মগুলিতে জড়িত।” এতে বলা হয়েছে, তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৬৯এ এ ধারায় এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে (জনসাধারণের দ্বারা তথ্য অ্যাক্সেস অবরুদ্ধ করার পদ্ধতি ও সুরক্ষা) বিধি ২০০৯, প্রাসঙ্গিক বিধানাবলী সহ। জনস্বার্থ রক্ষা ও তথ্য সুরক্ষিত রাখা নিশ্চিত করতেই এই পদক্ষেপ বলে জানানো হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের অভিযোগ, এই ৫৯টি অ্যাপ ভারতের ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি করছে। অ্যাপ ব্যবহারকারীর নাম, ঠিকানা, সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট,নানারকম গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের ওপর গোপনে নজরদারি চালায় এই অ্যাপগুলো। এমনকি ভারতের সার্বভৌমত্ব, সৌভ্রাতৃত্বকেও চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলছে। ভারতের প্রতিরক্ষা, নিরাপত্তাকেও নষ্ট করার চেষ্টা করছে এই অ্যাপগুলো।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সূত্রে বলা হচ্ছে, TikTok নিয়ে উদ্বেগ তো রয়েছেই। কিন্তু আরও চিন্তা হল UC Browser বা CamScanner নিয়ে। কারণ, বহু লক্ষ ভারতীয় সরকারি নথিপত্র বা ব্যক্তিগত প্রমাণপত্র মোবাইলে ক্যাম স্ক্যানারের মাধ্যমে স্ক্যান করেছে। সেই সব নথির আর কোনও গোপনীয়তা রয়েছে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।

গত মাস থেকেই ভারতের লাদাখে সেনা মোতায়েন করতে শুরু করে চীন। কিছুদিন আগেই ভারত ও চীনের সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষের জেরে ২০ জন ভারতীয় সেনাও মারা যান। অভিযোগ উঠেছে, বারবার আলোচনার পরেও এতটুকু নমনীয় হয়নি চীন। তাই মনে করা হচ্ছে, চীনকে বার্তা দিতেই চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধকরণের এই সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় সরকার।

 

এই খবরটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন